ইস্টবেঙ্গলের হয়ে ফেডারেশনকে ভুল করে চিঠি এফপিএ’র, ড্যামেজ কন্ট্রোলে প্রেসিডেন্ট রেনেডি

  • Whatsapp

নয়াদিল্লি: আসন্ন মরশুমে কোন লিগে খেলবে প্রিয় দল, ভেবে ঘুম ছুটেছে ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের। দেশের সর্বোচ্চ লিগে খেলার ব্যাপারে চেষ্টার কোনও ত্রুটি রাখছেন না কর্তারা। তবু এক-একটা দিন যাচ্ছে আর ক্ষীন হচ্ছে আসন্ন মরশুমে লাল-হলুদের আইএসএল খেলার আশা। এমন সময় ইস্টবেঙ্গলের আইএসএলে খেলার বিষয়ে ফেডারেশনের দ্বারস্থ হল ফুটবল প্লেয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া বা এফপিএআই।

দেশের টপ লিগে কলকাতা জায়ান্টদের অন্তর্ভুক্তির জন্য ফেডারেশন এবং একইসঙ্গে আইএসএল’কে খোলা চিঠি দিল এফপিএআই। অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশনের জেনারেল সেক্রেটারি কুশল দাস এবং আইএসএল আয়োজক সংস্থা এফএসডিএল’কে পাঠানো চিঠিতে এফপিএআই জেনারেল ম্যানেজার সাইরাস কনফেকশনার লিখেছেন, ‘দ্ব্যর্থহীনভাবে এবং কোনওরকম কালবিলম্ব না করে ইস্টবেঙ্গলকে আইএসএলে অন্তর্ভুক্ত করার আর্জি জানাচ্ছি।’ সাইরাস আরও লেখেন, ‘ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের ইতিহাস ভীষণই সমৃদ্ধ। দেশের অন্যতম প্রাচীন এবং প্রিমিয়র ক্লাব হওয়ায় ক্লাবের সমর্থনও প্রচুর।

ভারতে ফুটবল বেড়ে ওঠা এবং উন্নতির স্বার্থে যা ভীষণই প্রয়োজনীয়। ভারতীয় ফুটবলের উন্নতিতে ইস্টবেঙ্গলের ক্লাবের অবদান হিসেব করার নয়।’ কিন্তু কলকাতা জায়ান্টদের হয়ে ফেডারেশনে এমন আবেদন করে বড়সড় বেকায়দায় পড়ে এফপিএআই। কোনও ক্লাবের হয়ে ফেডারেশনের কাছে এমন আবেদন সংস্থার এক্তিয়ার বহির্ভুত। সব দেখেশুনে আসরে নামেন এফপিএআই প্রেসিডেন্ট তথা প্রাক্তন জাতীয় ফুটবলার রেনেডি সিং। আসরে নেমে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের প্রাক্তনী রেনেডি জানান, গোটা ঘটনাটি তাঁর সম্মতি ছাড়াই ঘটেছে।

জুনিয়র পদাধিকারী ব্যক্তি তাঁর অনুমতি ছাড়া এমন কান্ড ঘটানোয় রেনেডি পুনরায় একটি চিঠি পাঠিয়েছেন ফেডারেশনকে। যেখানে লেখা হয়েছে, ‘আমার সংস্থা থেকে যে চিঠিটি পাঠানো হয়েছে সেখানে আমরা কোনও নির্দিষ্ট ক্লাবকে সমর্থন করে কিছু জানায়নি। আমরা কেবল ফুটবলারদের পাশে দাঁড়াতে চেয়েছি।’ সেখানে আরও জানানো হয়, ‘আইএসএলে খেলা না খেলার বিষয়টি ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের অন্দরমহলের ব্যাপার। ক্লাব সেটা এফএসডিএল এবং ফেডারেশনের সঙ্গে আলোচনা করে ঠিক করবে। আমার সঙ্গে আলোচনা না করে এমন একটি চিঠি পাঠানোর ঘটনায় আমি হতবাক।’

আসন্ন মরশুমে আইএসএলে নতুন কোনও দলের অন্তর্ভুক্তি ঘটবে না জানিয়ে দিনকয়েক আগে তাঁদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছে আইএসএল। তবুও আলোচনার মাধ্যমে ২০২০-২১ আইএসএলে খেলার সম্ভাবনা এখনও জিইয়ে রেখেছে লেসলি ক্লডিয়াস সরণির ক্লাব। তবে ইনভেস্টর না আসায় ক্রমশই ক্ষীণ হচ্ছে আশা। এমন সময় এফপিএআই’য়ের এহেন কৃতকর্ম নিয়ে ফুটবলমহলে জোর চর্চা।

প্রশ্ন অনেক: তৃতীয় পর্ব

Related posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *